ভাইস-চ্যান্সেলর(vice-chancellor) : ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড.মোঃ সামসুদ্দীন সুদিঘ প্রায় সাড়ে ৩৭ বছর বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ময়মনসিঙ্ঘ এ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে চাকুরীরত অবস্থায় বিগত ২৭ ডিসেম্বর ২০১২ খ্রি. পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে যোগদান করেন । পটভূমি(Background): পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপন এই অঞ্চলের উচ্চশিক্ষা প্রসারের জন্য একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ ছিল । দক্ষিন জনপদে বরিশাল বিভাগের একমাত্র এই বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত । এই অঞ্চলের অবহেলিত জনগনের উচ্চ শিক্ষা গ্রহন সহজলভ্য করাই ছিলো অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল উদ্দেশ্য । কিন্তু নানা ঘাত-প্রতিঘাতে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার পূর্ণাঙ্গ সাবলিল ব্যবস্থাপনা উন্নয়নসহ সার্বিক উন্নতি সাধিত হয়নি । তবে আশার কথা বর্তমানে সবার সহযোগিতায় সরবক্ষেত্রে প্রভূত অগ্রগতির পথ উন্মুক্ত হয়েছে ।

প্রতিষ্ঠাতা (Establishment of PSTU): ২০০০ সালের ৮ জুলাই পটুয়াখালী কৃষি কলেজের অবকাঠামোতেই পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশবিদ্যাল্য় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও উদ্ভধন করেন তদানীন্তন গনপ্রজাত্নত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয়। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা। এখানে উল্লেখ যে জননেত্রী শেখ হাসিনা সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী হিসেবে দক্ষিনাঞ্চল সফরকালে ১৯৯৪ সালের ২২ অক্টোবর লেবুখালীর পথসভায় তার দেওয়া প্রতিশ্রুতি এবং গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ১৯৯৭ সালের ১৫ মার্চ পটুয়াখালী জনসভায় পটুয়াখালী কৃষি কলেজকে পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করার ঘোষনা দেন। এরই ধারাবাহিকতায় বিশ্ববিদ্যালয় কার্যক্রম শুরুর জন্য প্রকল্প পরিচালক নিয়োগ দেয়া হয় । ২০০০ সালের কৃষি অনুষদের প্রথম ব্যাচের ছাত্র-ছাত্রী ভর্তির মাধ্যমে ২৪ সেপ্টেম্বর ক্লাস কার্যক্রম শুরু হয় ২০০১ সালের ১২ জুলাই বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে এতদসংক্রান্ত আইন গৃহীত হলে ২০০২ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারী সরকারি প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে প্রশাসনিক স্থবিরতা দূর করা হয় ।

অবস্থান ও আয়তন(Location and Area): পটুয়াখালী জেলা শহর থেকে ১৫ কি.মি. উত্তরে বরিশাল বিভাগীয় শহর থেকে ২৮ কি.মি. দক্ষিনে বরিশাল- পটুয়াখালী মহাসড়ক (লেবুখালী) থেকে ৫ কিমি পূর্বে পটুয়াখালী জেলার দুমকি উপজেলার প্রানকেন্দ্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাস অবস্থিত। বহিঃস্থ ক্যাম্পাস বরিশাল জেলার খানপুরা, বাবুগঞ্জে অবস্থিত । বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট আয়তন ৮৯,৯৭ একরের মধ্যে মূল ক্যাম্পাস ৭৭.০০ একর ও বহিঃ ক্যাম্পাস ১২.৯৭ একর ।